বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ১০:৪১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
মধ্যরাতেও বিদ্যুৎহীন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় আশুরায় যেভাবে পতন ঘটেছিল ফেরাউনের ব্রিটেনকে ‘সত্যিকারের ইসলামপন্থি’ দেশ বলে বিতর্কের মুখে ট্রাম্পের রানিংমেট কোটা আন্দোলনে প্রাণহানির তদন্ত চায় জাতিসংঘ শিক্ষার্থীদের উপর হামলার প্রতিবাদে যুক্তরাষ্ট্রে মানববন্ধন শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বজায় রাখার আহ্বান পুলিশের লন্ডনে আল্লামা দুবাগী ছাহেব কিবলাহ (রহ.)’র ঈসালে সাওয়াব মাহফিল অনুষ্ঠিত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জাতির উদ্দেশে দেয়া পূর্ণাঙ্গ ভাষণ বিশ্ব মিডিয়ায় গুরুত্ব পাচ্ছে বাংলাদেশে কোটা আন্দোলনে সহিংসতা আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের ‘কমপ্লিট শাটডাউনে’ সমর্থন বিএনপির

মিথ্যার বিরুদ্ধে সাংবাদিকদের প্রতিবাদ করতে হবে: তথ্য প্রতিমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • খবর আপডেট সময় : রবিবার, ৭ জুলাই, ২০২৪
  • ২১ এই পর্যন্ত দেখেছেন

দলমত নির্বিশেষে গণমাধ্যমের সাংবাদিকদের সব মিথ্যা প্রত্যাখ্যান করে তার প্রতিবাদ করার আহ্বান জানিয়েছেন তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মদ আলী আরাফাত। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা একদিকে গণমাধ্যমের পরিসর বাড়াবেন, সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্ট করবেন আর অন্যদিকে একটা গোষ্ঠী সরকারের বিপক্ষে গণমাধ্যমে অসত্য কথা বলে যাবেন এটা হতে পারে না। কাজেই আমি অনুরোধ করবো দলমত নির্বিশেষে সাংবাদিক বন্ধুরা সব মিথ্যার প্রতিবাদ করুন। অপপ্রচারের বিপক্ষে রুখে দাঁড়ান, সত্যের পক্ষে থাকুন।

তিনি বলেন, অবশ্যই সরকারের ব্যর্থতা-বিচ্যুতির সমালোচনা করবেন। সরকার এটাকে স্বাগত জানাবে। কিন্তু মিথ্যাচার করলে সেটা মেনে নেয়া হবে না, সত্য তুলে ধরে জবাব দেয়া হবে।

রবিবার (৭ জুলাই) বিকেলে রাজধানীর তথ্য ভবন মিলনায়তনে বাংলাদেশ সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্ট থেকে ২০২৩-২৪ অর্থবছরে তৃতীয় পর্যায়ের কল্যাণ অনুদান বা আর্থিক সহায়তার চেক বিতরণের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সুভাষ চন্দ্র বাদলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন সংসদ সদস্য ফরিদা ইয়াসমিন, প্রধান তথ্য কর্মকর্তা মো. শাহেনুর মিয়া ও ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি সোহেল হায়দার চৌধুরী।

তথ্য প্রতিমন্ত্রী বলেন, দেশে শুধু মত প্রকাশের স্বাধীনতাই নয়, মিথ্যা বলারও স্বাধীনতা আছে। সরকারের কোন একটা চুক্তি বা সমঝোতা স্মারক বা সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করার অধিকার যে কারো আছে। কিন্তু মিথ্যা বলে কেনো বিরোধিতা করতে হবে, জনগণকে বিভ্রান্ত করে কেনো বিরোধিতা করতে হবে? এতে মানুষকে ধোঁকা দেয়া হচ্ছে। এটা মত প্রকাশের স্বাধীনতা নয়, এটা অপরাধ। অথচ বর্তমান সরকারের বিপক্ষে মত প্রকাশের স্বাধীনতা, গণমাধ্যমের স্বাধীনতার কথা বলে বিভিন্ন অপপ্রচার করা হয়।

মো. আলী আরাফাত বলেন, সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্ট প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্যোগ। বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে সাংবাদিক সমাজের যেমন নিবিড় সম্পর্ক ছিল, বঙ্গবন্ধু কন্যার সঙ্গেও একইভাবে নিবিড় সম্পর্ক ছিল। যে কারণে বঙ্গবন্ধুর মতো প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশ্বাস করেন, দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে গণমাধ্যম, মত প্রকাশের স্বাধীনতা, সাংবাদিক সমাজ ও তাদের ভূমিকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। যে কারণে সাংবাদিক সমাজ ও গণমাধ্যমের পাশে সরকারকে দাঁড়াতে হবে। সাংবাদিকদের জন্য তার চিন্তাভাবনা খুবই ইতিবাচক। যে কারণে কল্যাণ ট্রাস্ট করেছেন।

তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী বলেন, শেখ হাসিনা সরকারের গণমাধ্যমের সম্পর্ক, গণমাধ্যম ও মত প্রকাশের স্বাধীনতা নিয়ে সমালোচনার চেষ্টা হয়। কিন্তু সাংবাদিকদের কল্যাণে নেয়া বঙ্গবন্ধু কন্যার উদ্যোগগুলো খুব বেশি শোনা যায় না, বড় রিপোর্টও আসে না। অথচ এগুলো দেশি ও বিদেশি বিভিন্ন জায়গায় বলা দরকার।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, গত ১৫ বছরে দেশে গণমাধ্যমের আকার দ্বিগুণ হয়েছে। বঙ্গবন্ধু কন্যা গণমাধ্যমবান্ধব বলেই তিনি গণমাধ্যমের বিস্তৃতির শুধু সুযোগ করে দেননি, গণমাধ্যমকে বিস্তৃত হওয়ার জন্য প্রণোদনা দিয়েছেন, পরিবেশ তৈরি করেছেন। গণমাধ্যমে যারা কাজ করছেন তাদের কল্যাণে ট্রাস্ট করেছেন। এ ইতিবাচক বিষয়গুলো আমরা খুব একটা তুলে ধরতে পারছি না। শেখ হাসিনার কল্যাণ ট্রাস্ট গঠন ও এর মাধ্যমে দলমত নির্বিশেষে সত্যিকার অর্থে দুস্থ সাংবাদিকদের পাশে দাঁড়ানোর যে প্রচেষ্টা, সেটিই প্রমাণ করে এই সরকার গণমাধ্যমবান্ধব।

তিনি বলেন, ২০২৩-২৪ অর্থবছরে সারাদেশে ৭৮৪ জন সাংবাদিক ও তাদের পরিবারের মধ্যে ৬ কোটি ১৫ লাখ ৫০ টাকা কল্যাণ অনুদান দেয়া হয়। সর্বশেষ সারাদেশে ২৯৩ জন সাংবাদিক ও তাদের পরিবারের মধ্যে ২ কোটি ২২ লাখ টাকা অনুদান দেয়া হয়েছিল।

নিউজ /এমএসএম

দয়া করে খবরটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এই ক্যাটাগরিতে আরো যেসব খবর রয়েছে
All rights reserved © UKBDTV.COM
       
themesba-lates1749691102