বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪, ০৬:১৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
ছাত্র আন্দোলনের নামে নাশকতাকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা—-ব্যারিস্টার মো. হারুন অর রশিদ দেশকে বিশ্ব থেকে বিচ্ছিন্ন করতেই বিএনপি-জামায়াতের কর্মীরা কেন্দ্রীয় ডাটা সেন্টার জ্বালিয়ে দিয়েছে—-তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী প্রেসিডেন্ট প্রার্থীতা থেকে সরে দাঁড়ালেন বাইডেন দেশব্যাপী নাশকতায় বিএনপি-জামায়াত জড়িত আরো তিন দিনের এইচএসসি পরীক্ষা স্থগিত ফিফা র‍্যাংকিংয়ে সেরা আর্জেন্টিনা, ব্রাজিল কোথায়? শিক্ষার্থীদের লাশ বানিয়ে ফায়দা লোটার অপচেষ্টায় বিএনপি-জামায়াত: কাদের পরিস্থিতি বুঝে মোবাইল ইন্টারনেট বন্ধ করা হয়েছে : পলক কোটা আন্দোলনকারীদের প্রস্তাব গ্রহণ করেছেন প্রধানমন্ত্রী: আইনমন্ত্রী শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আলোচনার জন্য দুই মন্ত্রীকে দায়িত্ব দিলেন প্রধানমন্ত্রী

ব্রিকসে ঐক্যের ডাক চীনের প্রেসিডেন্টের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
  • খবর আপডেট সময় : বুধবার, ২৩ আগস্ট, ২০২৩
  • ৮২ এই পর্যন্ত দেখেছেন

চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং বুধবার দক্ষিণ আফ্রিকায় শীর্ষ সম্মেলনে ব্রিকস সদস্য দেশগুলোর ঐক্যের আহ্বান জানিয়েছেন। যখন বৈশ্বিক অস্থিরতা ও রূপান্তরের সময় মোকাবিলায় ব্লকটি সম্প্রসারণে গুরুত্ব দিচ্ছেন তখন তিনি এই ঐক্যের আহ্বান জানালেন। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স এ খবর জানিয়েছে।

বিশ্বের নেতৃস্থানীয় উন্নয়নশীল দেশ ব্রাজিল, রাশিয়া, ভারত, চীন ও দক্ষিণ আফ্রিকান ব্লকের নেতারা জোহানেসবার্গে ব্রিকস শীর্ষ সম্মেলনে অংশগ্রহণ করছেন। এতে ব্লকে নতুন দেশকে নেওয়ার জন্য একটি কাঠামো এবং মানদণ্ড প্রতিষ্ঠার বিষয় নিয়ে আলোচনা এজেন্ডায় রয়েছে।

যদিও প্রকাশ্যে ব্রিকস সদস্য দেশগুলো সম্প্রসারণের প্রতি সমর্থন জানিয়েছে, কিন্তু কীভাবে এবং কতটা দ্রুততার সঙ্গে সম্প্রসারণ করা হবে তা নিয়ে ব্লকের মধ্যে মতভেদ রয়েছে।

ব্লকের গুরুত্বপূর্ণ সদস্য চীন দীর্ঘকাল ধরে সম্প্রসারণের জন্য চাপ দিয়ে আসছে। ওয়াশিংটনের সঙ্গে অবনতিশীল সম্পর্কের পাশাপাশি ইউক্রেন যুদ্ধের ফলে বিশ্বব্যাপী উত্তেজনা বৃদ্ধির প্রেক্ষাপটে ব্রিকসের সম্প্রসারণ জরুরি বলে মনে করে দেশটি।

বুধবার সম্মেলনে চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং বলেছেন, বিশ্ব বড় পরিবর্তন, বিভাজন এবং পুনর্গঠনের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে, অস্থিরতা ও রূপান্তরের একটি নতুন যুগে প্রবেশ করেছে। আমাদের ব্রিকস দেশগুলোর সর্বদা ঐক্যের মাধ্যমে নিজেদের শক্তিশালী করার প্রতিষ্ঠাকালীন উদ্দেশ্য মনে রাখা উচিত।

ব্রিকস গ্রুপের দেশগুলোর অর্থনীতির আকার ও সরকারের মধ্যে পার্থক্য রয়েছে। এসব দেশের পররাষ্ট্রনীতিতে পার্থক্য থাকায় সিদ্ধান্ত গ্রহণকে জটিল করে তোলে বলে ধারণা করা হয়। যেমন, চীনের অর্থনীতি আফ্রিকা মহাদেশের সবচেয়ে উন্নত দেশ দক্ষিণ আফ্রিকার চেয়ে ৪০ গুণ বড়।

ইউক্রেনে আগ্রাসনের কারণে যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপ দ্বারা বিচ্ছিন্ন রাশিয়া। দেশটিও দ্রুত ব্লকটির সম্প্রসারণ এবং পশ্চিমাদের পাল্টা বিশ্ব ব্যবস্থা হিসেবে দাঁড় করানোর চাপ দিচ্ছে।

ইউক্রেনে যুদ্ধাপরাধের অভিযোগে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের গ্রেফতারি পরোয়ানা থাকায় রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ব্রিকসের সদস্য পদকে তুলে ধরে পশ্চিমাদের দেখাতে চাইছেন, মস্কোর এখনও বন্ধু দেশ রয়েছে।

গ্রেফতার এড়াতে দক্ষিণ আফ্রিকা সফর না করলেও ভিডিও বার্তায় পশ্চিমা দেশগুলোকে আক্রমণ করেছেন পুতিন। তিনি  দাবি করেছেন, কিছু দেশ উপনিবেশবাদ প্রচার করছে, যা ইউক্রেনে ভয়াবহ সংকট তৈরি করেছে। পশ্চিমাদের দ্বারা যুদ্ধের প্রতিক্রিয়া হলো ইউক্রেনে রাশিয়ার পদক্ষেপ। বিশ্বে তাদের আধিপত্য ধরে রাখার উচ্চাকাঙ্ক্ষা থেকে ২০১৪ সালে ইউক্রেনে ক্যু হয়েছে।

দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট সিরিল রামাফোসা মঙ্গলবার বলেছেন ব্রিকস সম্প্রসারণের বিষয়ে তার এবং শি জিনপিংয়ের অবস্থান একই রয়েছে। কিন্তু ব্রাজিল ও ভারতের পক্ষ থেকে বিরোধিতা  এসেছে। এ দুটি দেশ পশ্চিমাদের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক তৈরি করেছে।

ব্লকটিকে যুক্তরাষ্ট্র এবং সাতটি ধনী অর্থনীতির গ্রুপ জি-৭-এর প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে গড়ে তোলার ধারণা প্রত্যাখ্যান করেছেন ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট লুইজ ইনাসিও লুলা দা সিলভা

প্রতিবেশী আর্জেন্টিনাকে ব্রিকসে অন্তর্ভুক্ত করার চাপের মুখে তিনি বলেছিলেন, যেকোনও নতুন সদস্যদের কিছু শর্ত পূরণ করতে হবে। এর ফলে ব্লকটি ব্যাবিলনের টাওয়া হয়ে উঠবে না।

চীনা আধিপত্যের ব্যাপারে সতর্ক থাকা ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বুধবার বলেছেন, নয়াদিল্লি সম্প্রসারণের প্রতি পুরোপুরি সমর্থন জানায়।

তবে মঙ্গলবার শেষ দিকে নেতাদের আলোচনা সম্পর্কে অবগত একজন ভারতীয় কর্মকর্তা বলেছেন, মোদি ইঙ্গিত দিয়েছেন সম্প্রসারণ কীভাবে হবে এবং কারা যোগ দিতে পারে তা সম্পর্কে প্রাথমিক নিয়ম থাকতে হবে।

ভারত ও চীন বিতর্কিত হিমালয় সীমান্ত নিয়ে মাঝে মাঝে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়।

দক্ষিণ আফ্রিকার কর্মকর্তারা বলছেন, ৪০টিরও বেশি দেশ ব্রিকসে যোগ দিতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে। এরমধ্যে ২২টি দেশ আনুষ্ঠানিকভাবে আবেদন করেছে।

বুধবার চূড়ান্ত হওয়ার পর একটি যৌথ ঘোষণায় যোগদানের মানদণ্ডের বিস্তারিত প্রকাশ করা হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

সম্প্রসারণবাদে মার্কিন ডলারের ওপর নির্ভরতা কমাতে বাণিজ্য ও আর্থিক লেনদেনে সদস্য রাষ্ট্রগুলোর স্থানীয় মুদ্রার ব্যবহার বাড়ানোও শীর্ষ সম্মেলনের আলোচ্যসূচিতে রয়েছে। দক্ষিণ আফ্রিকার সংগঠকরা বলেছিলেন, একটি সাধারণ ব্রিকস মুদ্রা নিয়ে কোনও আলোচনা হবে না। ডলার নির্ভরতার বিকল্প হিসেবে ব্রাজিল এই প্রস্তাব তুলে ধরেছিল।

সৌদি আরব, আলজেরিয়া ও আর্জেন্টিনাসহ অন্তত ১৫টি সম্ভাব্য নতুন সদস্য দেশ ব্লকের নিউ ডেভেলপমেন্ট ব্যাংকে (এনডিবি) যোগদানের জন্য বিবেচনাধীন রয়েছে বলে বুধবার ব্যাংকটির প্রধান আর্থিক কর্মকর্তা বলেছেন।

এনডিবি গত সপ্তাহে প্রথম দক্ষিণ আফ্রিকান বন্ড জারি করেছে। এরপর পাঁচ বছরে আড়াই বিলিয়ন ডলার মূল্যের ভারতীয় রুপি বন্ড কর্মসূচিতে নিবন্ধন করেছে।

নিউজ /এমএসএম

দয়া করে খবরটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এই ক্যাটাগরিতে আরো যেসব খবর রয়েছে
All rights reserved © UKBDTV.COM
       
themesba-lates1749691102